২ জুন চূড়ান্ত হবে টেস্ট অধিনায়কের নাম

0 94

|| খেলার মাঠ প্রতিবেদন ||

টেস্ট অধিনায়কের দায়িত্ব থেকে সরে দাঁড়ানোর ঘোষণা দিয়েছেন মুমিনুল হক। এদিকে দরজায় কড়া নাড়ছে ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজও। এমতাবস্থায় বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) ভাবনায় সাদা পোশাকে পরবর্তী যোগ্য নেতার। যে তালিকায় সবার আগে আছেন টাইগার অলরাউন্ডার সাকিব আল হাসান। পরিবারের সঙ্গে ছুটি কাটানোর বদলে, হুট করে তার দেশে ফেরা, সে গুঞ্জনে মেলছে ডালপালাও। তবে শেষ পর্যন্ত কার কাঁধে বর্তাবে টেস্টের নেতৃত্ব সেটা জানা যাবে আগামী ২রা জুন
শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে সিরিজ শেষেই কথা উঠেছিল মুমিনুল হকের অধিনায়কত্ব নিয়ে। তবে তার নেতৃত্ব নিয়ে কোনো রকম অভিযোগ ছিল না বোর্ড সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন ও হেড কোচ রাসেল ডমিঙ্গোর।

মুমিনুলকে যে অভিযোগে ছিল সেটা মূলত তার পারফরম্যান্স নিয়ে। আর তার এই পারফরম্যান্সে অধঃপতন অধিনায়কত্বের চাপের কারণে হয়েছে বলে দেশের ক্রিকেট বিশ্লেষকদের ধারণা। ফলে বোর্ড সভাপতি মঙ্গলবার তাকে ডেকে জানতে চেয়েছিলেন সমস্যার কথা। বৈঠক শেষ যেখানে মুমিনুলও নিজের ব্যাটিংয়ে নজর দিতে ঘোষণা দেন অধিনায়ত্ব ছাড়ার।

এদিকে অনেক দিন ধরেই গুঞ্জন চলছে, সাদা পোশাকে বাংলাদেশের অধিনায়ক হতে যাচ্ছেন সাকিব আল হাসান। দেশের ক্রিকেট বিশ্লেষকরদের অনেকেই তো মনে করেন এই সংস্করণে দায়িত্ব নেয়া উচিত টাইগার অলরাউন্ডারের। সে গুঞ্জনই যেন ডালপালা মেলছে যুক্তরাষ্ট্র থেকে হঠাৎ সাকিব আল হাসানের দেশে আসা নিয়ে। ধারণা করা হচ্ছে অধিনায়কত্ব ইস্যুতে বোর্ডের সঙ্গে কথা বলতেই হুট করে তার দেশে ফেরা।

সাকিব এর আগেও দুই মেয়াদে বাংলাদেশের অধিনায়ক ছিলেন। ২০০৯ সাল থেকে ২০১১ সালে তিনি দেশের হয়ে তিন সংস্করণেই নেতৃত্ব দেন। এরপর ২০১৭ থেকে ২০১৯ সালে তিনি দ্বিতীয় মেয়াদে টাইগারদের টি-টোয়েন্টি ও টেস্টে নেতৃত্ব দেন। সাকিবের নেতৃত্বের যাত্রা যে ক্যারিবীয়দের বিপক্ষে শুরু হয়েছিল, হয়তো তাদের বিপক্ষে সিরিজ দিয়েই শেষ মেয়াদে তিনি শুরু করবেন তার অধিনায়ক যাত্রা। আাগামী ১৬ জুন দুই ম্যাচ টেস্ট সিরিজের প্রথম ম্যাচে দুই দল পরস্পরের মুখোমুখি হবে।

জেটি//এফএস

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More