মৌসুমীকে নিয়ে খারাপ মন্তব্য করবেন না : ওমর সানী

0 106

|| সংস্কৃতির মঞ্চ প্রতিবেদন ||

অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজলের ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়ে অভিনেতা জায়েদ খান এবং ওমর সানীর মধ্যকার দ্বন্দ্বের জেরে ঘটে যাওয়া অপ্রীতিকর ঘটনায় নিজের অবস্থান ক্লিয়ার করতে সোমবার দুপুর ৩টায় ফেসবুকে সকলের উদ্দেশ্যে লাইভে আসেন ওমর সানী।

এ সময় ওমর সানী অনুরোধ করে বলেন, দর্শক যারা আছেন, দয়া করে বাজে মন্তব্য করবেন না মৌসুমীকে নিয়ে। বাজে মন্তব্য করবেন না আমাদেরকে নিয়ে। আপনাদের যা কিছু… আমাকে বলবেন। আমি মাথা পেতে নেবো।

এদিকে ওমর সানীর অভিযোগ করেন, জায়েদ খান নানাভাবে উত্যক্ত করে আসছে তার স্ত্রী অভিনেত্রী মৌসুমীকে। প্রতিবাদে জায়েদ খান তাকে গুলি করার হুমকি দেন। অবশ্য এসব অভিযোগ অস্বীকার করেছেন জায়েদ খান। তবে মৌসুমীর বক্তব্যের পর ঘটনার মোড় ঘুরে গেছে ভিন্ন দিকে।

এ নিয়ে মৌসুমী সংবাদমাধ্যমকে জানান, তার প্রসঙ্গটি এখানে অহেতুক টানা হয়েছে। জায়েদ খান তাকে সম্মান করেন, তিনিও অভিনেতাকে স্নেহ করেন। তেমন কিছু হলে বিষয়টি পারিবারিকভাবে মিটিয়ে নেয়া উচিত ছিল।

ওমর সানীর বিপরীতে গিয়ে মৌসুমীর এমন বক্তব্য সামনে আসার পরই উঠেছে নানা প্রশ্ন, নানা মন্তব্য করছেন দর্শক ও অনুরাগীরা। সেসবের উত্তর দিতে সোমবার দুপুর ৩টায় ফেসবুকে লাইভে এসে নিজের দিকটি স্পষ্ট করেন ওমর সানী।

সেখানে তিনি বলেন, আমার স্ত্রীকে আমি বিয়ে করেছি ২৭ বছর। আমার ফুটফুটে ২টি ছেলে-মেয়ে আছে। আমি গতকাল একটি অ্যাপ্লাই করেছিলাম শিল্পী সমিতিতে জায়েদ খানের বিরুদ্ধে, সেটিতে আমি এখনও অটল। তার (জায়েদ খান) বিষয়ে যে কথা বলেছি, তা একদম সত্য কথা। বিশেষ করে তার গাড়ির বিষয়ে আমার আর আমার ছেলে ফারদিনের কাছে যথেষ্ট প্রমাণ আছে।

মৌসুমীর বিষয়ে বলতে গিয়ে তিনি বলেন, মৌসুমী আমার স্ত্রী। আমার দুই সন্তানের মা, তিনি একজন গর্জিয়াস মা। আমি তাকে অসম্মান করে একটি কথাও বলবো না। কী ভেবে সে জায়েদ খানকে ভালো বলেছে….। জায়েদ খানের বিষয়ে বাংলা চলচ্চিত্র জানে, বর্তমান ক্যাবিনেট জানে, প্রযোজক সমিতির ক্যাবিনেট ও পরিচালক সমিতির ক্যাবিনেট জানে, দর্শক জানে। আমি এ ব্যাপারে আর কথা বলবো না।

ওমর সানী বলেন, সামনে আমার ছেলে ফারদিন ও মেয়ে ফাইজা আপনাদেরকে বিষয়টি ক্লিয়ার করবে। আমি আমার অভিভাবক হিসেবে আমার ছেলে ফারদিনকে মেনে নিলাম। আমার ফ্যামিলির ইজ্জত মানে আমার ইজ্জত, আমার স্ত্রীর ইজ্জত মানে আমার ইজ্জত, আমার ছেলে-মেয়ের ইজ্জত মানে আমার ইজ্জত। আমি চাই না এই ২৭ বছরে এসে কোনো ধরনের ভুল বোঝাবুঝি ফ্যামিলির মধ্যে হোক। কিন্তু বাইরের মানুষ এসে যেভাবে ভাঙার চেষ্টা করছে, আপনারা নিজেরাই জানেন।

এ সময় শেষে ওমর সানী বলেন, আমি কখনও কোনো খারাপ মানুষের সাথে নাই। আমার পরিবারের সাথেই আমি থাকতে চাই, আমার স্ত্রী, সবার সাথেই থাকতে চাই। আমার জন্য, আমার পরিবারের জন্য দোয়া করবেন। কোন ধরনের বাজে মন্তব্য করবেন না। করলে আমাকে নিয়ে বরেন।

অভিনেতা মনোয়ার হোসেন ডিপজলের ছেলের বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়ে অভিনেতা জায়েদ খান এবং ওমর সানীর মধ্যকার দ্বন্দ্ব এবং মৌসুমীকে উত্ত্যাক্তমূলক আচরণ করায় বিয়ের অনুষ্ঠানেই জায়েদ খানকে থাপ্পড় মারেন ওমর সানী। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করেই অনেকের মনে তৈরি হয় নানা জল্পনা কল্পনার।

জেটি//এফএস

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More