স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের কাছেই যাচ্ছে এনআইডি সেবা

0 87

২০০৭-০৮ সালে ছবিসহ ভোটার তালিকার কাজ শুরু করেছিলো ইসি। ভোটার তালিকার সাথে জাতীয় পরিচয় পত্র দেওয়ার কাজটিও দেওয়া হয় ইসিকে। জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন অনুবিভাগ একটি আইনগত ভিত্তি পায় ইসির অধীনে ২০১০ সালে।

গত ১৮ মে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় থেকে নির্বাচন কমিশনে চিঠি পাঠায় । এতে মূল বিষয় ছিলো, এনআইডি কার্যক্রম স্বরাষ্ট্র মন্ত্রাণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগে দেওয়া। এ নিয়েই বিপত্তির শুরু।

গত ৮ জুন জাতীয় পরিচয় পত্র (এনআইডি) সেবা নিজ দ্বায়িত্বে রাখার যুক্তি দেখিয়ে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগে চিঠি পাঠিয়েছিলো নির্বাচন কমিশন (ইসি)। সেই চিঠির প্রেক্ষিতে ইসিকে ফিরতি চিঠি দিলো মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

জাতীয় পরিচয় পত্রের নিবন্ধন কার্যক্রমের দ্বায়িত্ব পাচ্ছে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগই। বিষয়টি নিশ্চিত করতেই ইসিকে চিঠি পাঠায় মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের যুগ্মসচিব শফিউল আজিম স্বাক্ষরিত একটি চিঠি গত ২০ জুন ইসি সচিব কে পাঠানো হয়।

চিঠিটির শিরোনাম দেওয়া হয় “জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন কার্যক্রম নির্বাচন কমিশনের পরিবর্তে সুরক্ষা সেবা বিভাগ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীনে ন্যস্তকরণ”। তাতে বলা হয়, “১৭ মে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের পাঠানো পত্রের আলোকে সরকার জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন কার্যক্রম আইনানুগভাবে নির্বাচন কমিশন হতে সুরক্ষা সেবা বিভাগে হস্তান্তরের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে। এমতাবস্থায়, নির্দেশনাসমূহ যথাযথভাবে প্রতিপালনের জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হলো।”

ইসির দাবি, এনআইডির কাজ অন্য বিভাগে গেলে ভোটার তালিকা করা ও তা হালনাগাদ, নির্বাচনসহ বিভিন্ন সমস্যা হবে, এটি সংবিধান বিরোধী।

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More