লিগের লড়াই থেকে ছিটকেই গেল রিয়াল মাদ্রিদ?

0 81

||খেলার মাঠ প্রতিবেদন||

পরিস্থিতিটা ফিরে ফিরে আসছিল। সেই এস্তাদিও আলফ্রেডো ডি স্টেফানো। আবারও সেই ঝুম বৃষ্টি। এল ক্ল্যাসিকোর সেই পারফরম্যান্সটাই ফিরলো রিয়াল মাদ্রিদের কাছে। রিয়াল বেটিসের কাছে তাই গোলশূন্য ড্রয়ে বাধ্য হয়েছে কোচ জিনেদিন জিদানের দল। লিগ ধরে রাখার লড়াই থেকেও তাই অনেকটাই পিছিয়ে পড়েছে দলটি।

শেষ কয়েক বছরে রিয়ালের মাঠে এলেই যেন বেটিস একরাশ বিপদের বার্তা নিয়ে আসে। সেই ২০১৭-১৮ মৌসুম থেকে শুরু। সেবার ১-০ গোলে জিতেছিল বেটিস। এর পরের বছর ব্যবধানটা বেড়ে ২-০ হলো। গেল মৌসুমে আবার গোলশূন্য ড্র। 

এবার অবশ্য পরিস্থিতি আরও খারাপ হওয়ার চোখরাঙানিই দিচ্ছিল রিয়ালকে। প্রথম ২০ মিনিটে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ ছিল বেটিসের পায়েই। এরপর ধীরে ধীরে রিয়াল মাদ্রিদ নিজেদের অবস্থান তৈরি করলেও বিরতির আগে গোলের দেখা মেলেনি কারো পক্ষেই। তবে প্রথমার্ধে গোলমুখে একমাত্র শটটাও ছিল মাদ্রিদেরই। কারিম বেনজেমার কাটব্যাকে রদ্রিগো গোয়েজের শটটা প্রতিহত হয় বেটিস রক্ষণে। ফিরতি চেষ্টায় বেনজেমার শটটা খুব সহজেই রুখে দেন বেটিস গোলরক্ষক ক্লদিও ব্রাভো।

বিরতির পর রিয়ালকে গোলবঞ্চিত রাখে ক্রসবার। এর কিছু পর বেটিসের নামও যোগ হয় আক্ষেপের খাতায়। গিদো রদ্রিগেজের শটটা যায় ঠিক রিয়াল গোলরক্ষক থিবো কোর্তোয়া বরাবর। এরপর ৬৫ মিনিটে বোরহা ইগলেসিয়াসও হতাশ করেন বেটিসকে। বক্সে ঢুকে শট করতে একটু সময় নিয়েছিলেন, তাতেই কোর্তোয়া এগিয়ে এসে বিপদমুক্ত করে দেন রিয়ালকে।

ম্যাচে এরপর আর তেমন কোনো উল্লেখ্য কিছু ঘটেনি, যাতে ফলাফলে আঁচ আসে। ফলে তিন ম্যাচে এ নিয়ে দ্বিতীয় বারের মতো পয়েন্ট খোয়ায় রিয়াল, তাতে শিরোপার আশাটাও অনেকটাই হয়ে গেছে ফিকে। ৩৩ ম্যাচ শেষে তাদের পয়েন্ট দাঁড়াল ৭১, তিনে থাকা বার্সা খেলেছে দুটো ম্যাচ কম, আছে রিয়াল থেকে তিন পয়েন্টে পিছিয়ে। আর অ্যাটলেটিকো মাদ্রিদ এক ম্যাচ কম খেলে রিয়ালের চেয়ে এগিয়ে আছে ২ পয়েন্টে। 

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More