রোনালদো-ব্রুনোর গোলে ইসরায়েলকে হারাল পর্তুগাল

0 26

আগের ম্যাচে স্পেনের বিপক্ষে ড্রয়ে বাধ্য হয়েছিলেন ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদোরা। কিন্তু ইসরায়েলের বিপক্ষে জ্বলে উঠল পর্তুগাল। রোনালদোর লক্ষ্যভেদ আর ব্রুনো ফের্নান্দেজের জোড়া গোলে দলটিকে ৪-০ গোলে উড়িয়ে দিয়ে ইউরো ২০২০ আসরের প্রস্তুতি সারল ফের্নান্দো সান্তোসের দল।

লিসবনের এস্তাদিও জোসে আলভালাদে স্টেডিয়ামে বুধবার রাতে ইউরোর আগে শেষ প্রস্তুতি ম্যাচে অবশ্য দলটির আক্রমণভাগেরই প্রস্তুতি হয়েছে কেবল। পুরো ম্যাচে যে কেবল একটা লক্ষ্যে শট রাখতে পেরেছিল ইসরায়েল! বিপরীতে পর্তুগালের শট ছিল ১৯টি, গোলমুখে ছিল আটটি শট। 

পরিসংখ্যান যেমন দেখাচ্ছে, ম্যাচটাও তেমন একপেশেই ছিল। প্রথম থেকে ছিল ইসরায়েল গোলপানে একমুখী চলাচল। প্রথম মিনিটে রোনালদো সুযোগ পেয়ে শটটা গোলরক্ষক বরাবর না মারলে হয়তো তখনই এগিয়ে যেতে পারত পর্তুগাল। ১৬ মিনিটে ব্রুনোর শট রুখে দেন ইসরায়েলের গোলরক্ষক।

গোলশূন্যভাবে বিরতির দিকে এগোতে থাকা ম্যাচের অচলাবস্থা ভাঙে ৪২ মিনিটে। জোয়াও ক্যানসেলোর বাড়ানো বল থেকে গোল করেন ফের্নান্দেজ।

দলকে এগিয়ে দেওয়া ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের এই মিডফিল্ডার গড়ে দিয়েছেন পরের গোলটা। তার পাস থেকেই দলের ব্যবধান দ্বিগুণ করেন রোনালদো। এর ফলে জাতীয় দলের ক্যারিয়ারে ১০৪তম গোলটি পেয়ে যান তিনি। বিশ্বরেকর্ড গড়তে এখন তার চাই আর মাত্র ৬ গোল।

প্রথমার্ধে যেমন হয়েছে, একমুখী আক্রমণ আর শেষের দিকে দুই গোল; দ্বিতীয়ার্ধেও হয়েছে তাই। শেষ পাঁচ মিনিট দেখেছে দুই গোল। ৮৬ মিনিটে দলকে তিন গোলে এগিয়ে দেন ক্যানসেলো। এরপর যোগ করা সময়ে ফের্নান্দেজের দূরপাল্লার শটে ৪-০ গোলের বড় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে দলটি।

ইউরোর প্রস্তুতি শেষ। এবার মূল লড়াইয়ের পালা। আগামী মঙ্গলবার হাঙ্গেরির বিপক্ষে ম্যাচ দিয়ে যার শুরু। ‘এফ’ গ্রুপে রোনালদোদের অন্য দুই প্রতিদ্বন্দ্বী হচ্ছে বর্তমান ও সাবেক দুই বিশ্বচ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স আর জার্মানি।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More