মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলায় সাক্ষ্য দিলেন কথিত স্ত্রী ঝর্ণা

0 9

||বঙ্গকথন প্রতিবেদন||

নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় দায়ের করা ধর্ষণ মামলায় হেফাজতে ইসলামের সাবেক যুগ্ম-মহাসচিব মামুনুল হকের বিরুদ্ধে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন মামলার বাদী ও তার কথিত স্ত্রী জান্নাত আরা ঝর্ণা। এ সময় আদালতের কাঠগড়ায় উপস্থিত ছিলেন মামুনুল হক । বুধবার দুপুরে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল আদালতের বিচারক মোহম্মদ শাহীন উদ্দিনের আদালতে তারা মুখোমুখি হন।

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের সরকারি কৌসুলি রকিব উদ্দিন আহমেদ বলেন, ৩ এপ্রিল সোনারগাঁয়ের রয়েল রিসোর্টের একটি রুমে নিয়ে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে জান্নাত আরাকে ধর্ষণ করেন মামুনুল হক। এর আগে দুই বছর ধরে তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করছিলেন আসামি। আদালতে বাদী আসামির বিরুদ্ধে সাক্ষ্য দিয়েছেন। আসামিপক্ষের আইনজীবীরা বাদীকে ৪১ বার প্রশ্ন করে জেরা করেছেন, কিন্তু বাদী প্রতিবার বলেছেন, তাকে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে ধর্ষণ করা হয়েছে।

আদালতে আসামিপক্ষের আইনজীবী সৈয়দ মোহম্মদ জয়নুল আবেদীন মেসবাহ্ বলেন, ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির আগমন কেন্দ্র করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে হেফাজতে ইসলামের দূরত্ব তৈরি হলে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে মামুনুল হকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের এই মামলা করা হয়। জান্নাত আরা বলেছেন, মামুনুল হক তাকে কলেমা পড়ে শরীয়ত মোতাবেক বিয়ে করেছেন। জেরায় বাদী অনেক প্রশ্নের উত্তর দিতে পারেন নি।

নারায়ণগঞ্জ কোর্ট পুলিশের পরিদর্শক আসাদুজ্জামান জানান, সকালে কড়া নিরাপত্তায় গাজীপুর হাই সিকিউরিটি কারাগার থেকে মামুনুল হককে নারায়ণগঞ্জে নিয়ে আসা হয়। সাক্ষ্য গ্রহণ শেষে তাকে আবার গাজীপুর হাই সিকিউরিটি কারাগারে পাঠানো হয়।

প্রসঙ্গত, ৩০ এপ্রিল সকালে বিয়ের প্রলোভেনে ধর্ষণের অভিযোগে হেফাজত নেতা মামুনুল হকের বিরুদ্ধে নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁ থানায় মামলা দায়ের করেন জান্নাত আরা ঝর্ণা। যাকে মামুনুল হক তার দ্বিতীয় স্ত্রী দাবি করেছিলেন।

এসএ//এমএইচ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More