ফৌজদারি মামলা পরিচালনায় উপযুক্ত নন কামরুন্নাহার

0 6

||বঙ্গকথন প্রতিবেদন||

হাইকোর্টের স্থগিতাদেশ সত্ত্বেও ধর্ষণ মামলার আসামিকে জামিন দিয়ে বিচারক মোছাম্মাৎ কামরুন্নাহার আপিল বিভাগের আদেশ লঙ্ঘন করেছেন বলে দেশের সর্বোচ্চ আদালতের পূর্ণাঙ্গ রায়ে উল্লেখ করা হয়েছে। রায়ে আপিল বিভাগ বলেছেন, তিনি কোনো ধরনের ফৌজদারি বিষয় পরিচালনার জন্য উপযুক্ত নন।

গেলো সোমবার প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বাধীন পাঁচ সদস্যের আপিল বিভাগ এ রায় দেন। ২৪ নভেম্বর রায়ের লিখিত অনুলিপি প্রকাশ করা হয়েছে।

এর আগে বনানীর রেইনট্রি হোটেলে দুই শিক্ষার্থী ধর্ষণ মামলায় ৭২ ঘণ্টা পর ধর্ষণ মামলা নেয়া যাবে না মর্মে পর্যবেক্ষণ দিয়ে আলোচনায় আসেন বিচারক কামরুন্নাহার। এই অভিযোগে তাকে বিচার কাজ থেকে প্রত্যাহারও করে সুপ্রিম কোর্ট। যদিও লিখিত রায়ে বিতর্কিত পর্যবেক্ষণ বাদ দেয়া হয়। একই সঙ্গে বিচারিক ক্ষমতা প্রত্যাহার করে তাঁকে আইন মন্ত্রণালয়ের আইন ও বিচার বিভাগে সংযুক্ত করা হয়। এরপরই আলোচনায় আসে তিন বছরের পুরনো এক ধর্ষণ মামলায় আসামির জামিনকাণ্ড। যার ধারাবাহিকতায় তাকে তলব করেছিলেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ।

আপিল বিভাগ যে মামলার বিষয়ে বিচারক মোছাম্মাৎ কামরুন্নাহার সম্পর্কে পর্যবেক্ষণ দিয়েছেন, সেটি রেইনট্রি ঘটনার মামলা নয়। ২০১৮ সালের সেপ্টেম্বর মাসে হাতিরঝিল থানায় করা ধর্ষণের অন্য এক মামলায় সর্বোচ্চ আদালতের স্থগিতাদেশের পরও আসামিকে জামিন দেন তিনি।

নথিপত্র পর্যালোচনা করে আপিল বিভাগের রায়ে বলা হয়, মামলার পুরো রেকর্ড না দেখার (বিচারক কামরুন্নাহার) বিষয়টি খারাপ উদ্দেশ্য ইঙ্গিত করে।

এসএ//এফএস

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More