প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ.টি. ইমাম মারা গেছেন

0 165

||বঙ্গকথন প্রতিবেদন||

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ.টি. ইমাম মারা গেছেন। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে ঢাকার কম্বাইন্ড মিলিটারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মৃত্যুর সময় তার বয়স হয়েছিল ৮২ বছর। কিডনি এবং বার্ধক্যজনিত জটিলতায় মাস খানেক ধরে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন তিনি।

এইচ. টি. ইমামের মৃত্যুতে রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরও শোক জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন।

দলের দপ্তর সম্পাদক বিপ্লব বড়ুয়া জানান, এইচ.টি. ইমামের মরদেহ বৃহস্পতিবার সকালে হেলিকপ্টারে করে উল্লাপাড়ায় তার গ্রামের বাড়িতে নেওয়া হয়। উল্লাপাড়া আকবর আলী সরকারি কলেজ মাঠে তার প্রথম জানাজা শেষে কফিন আবার ঢাকায় নিয়ে আসা হয়। বেলা দেড়টা থেকে সাড়ে ৩টা পর্যন্ত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে ইমামের মরদেহ রাখা হয় সবার শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য। আসরের নামাজের পর গুলশানের আজাদ মসজিদে আরেক দফা জানাজা শেষে তাকে বনানী কবরস্থানে দাফন করার প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে।

হোসেন তৌফিক ইমামের জন্ম ১৯৩৯ সালে। তিনি এইচ. টি. ইমাম নামেই পরিচিত হয়ে ওঠেন। বাবার চাকরিসূত্রে তার শৈশব-কৈশোর কেটেছে বিভিন্ন জেলায়। ম্যাট্রিক পাস করেন ঢাকা কলেজিয়েট স্কুল থেকে। আর ইন্টারমিডিয়েট পাস করেন পাবনা এডওয়ার্ড কলেজ থেকে। তিনি রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্নাতক এবং স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন। পরবর্তীতে লন্ডন স্কুল অফ ইকোনমিকস থেকে উন্নয়ন প্রশাসনে ডিগ্রি লাভ করেন।

বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় এইচ.টি. ইমাম প্রবাসী সরকারের ক্যাবিনেট সচিব হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। স্বাধীন বাংলাদেশের প্রথম মন্ত্রিপরিষদ সচিবও হন তিনি। ২০০৯ সাল থেকে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার জনপ্রশাসন বিষয়ক এবং রাজনৈতিক উপদেষ্টা হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছিলেন ইমাম। ২০০৮, ২০১৪ এবং ২০১৮ সালে তিনি আওয়ামী লীগের নির্বাচন পরিচালনা কমিটির কো-চেয়ারম্যানের দায়িত্বও পালন করেন।

ওএইচও//এমএইচ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More