জলপাই তেলে যতো উপকার

0 152

||যাপিত জীবন প্রতিবেদন||

জলপাই তেল বা অলিভ অয়েল স্বাস্থ্যকর এবং পুষ্টি সমৃদ্ধ তেলগুলোর মধ্যে একটি। এতে মনোস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড (এমইউএফএএস) থাকে যা স্বাস্থ্যকর চর্বির অন্যতম উৎস। জলপাই তেলের স্বাস্থ্যগত সুবিধার জন্য মানুষ এটি বিভিন্ন উপায়ে গ্রহণ করে। অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি এবং অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট মতো অসংখ্য পুষ্টিকর বৈশিষ্ট্য রয়েছে জলপাই তেলে। যুগ যুগ ধরে যেসব উপকারিতা মিলেছে এই প্রাকৃতিক তেলে-

প্রয়োজনীয় ফ্যাট গ্রহণে সহায়তা করে: প্রতিদিনের ডায়েটে কিছু পরিমাণ ফ্যাট মিশ্রিত করা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ডায়েটারি গাইডলাইন অনুযায়ী পলিঅনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড (পিইউএফএ) এবং মনস্যাচুরেটেড ফ্যাটি অ্যাসিড (এমইউএফএ) এর মাধ্যমে ২০-৩৫% ক্যালোরি পাওয়া গুরুত্বপূর্ণ। জলপাই তেল এই দুটি উৎসেই সমৃদ্ধ। জলপাইয়ের তেলের সরাসরি ব্যবহার স্বাস্থ্যকর ফ্যাট পেতে সহায়তা করবে।

কোষ্ঠকাঠিন্য দূর করতে: সরাসরি জলপাইয়ের তেল খাওয়ার আরো একটি সুবিধা হলো হজম ব্যবস্থা। জলপাই তেল কোষ্ঠকাঠিন্যের জন্য সেরা প্রাকৃতিক উপশমগুলোর মধ্যে একটি। এটি মল সফটনার হিসাবে কাজ করে এবং পাশাপাশি অন্ত্রের গতিবিধি নিয়মিত করার জন্যও কাজ করে।

হার্টের স্বাস্থ্য ভালো রাখে: জলপাই তেল নিয়মিত খেলে হার্ট ডিজিজ এবং কার্ডিয়াক জটিলতার ঝুঁকি হ্রাস করতে সহায়তা করে। প্রতিদিনের ডায়েটে অন্যান্য ফ্যাট ব্যবহারের ভারসাম্য বজায় রাখতে তবে এটি সবচেয়ে ভালো কাজ করে।

ওজন হ্রাস করে: সরাসরি জলপাই তেল গ্রহণ ওজন হ্রাস করে। এমন কিছু প্রমাণ রয়েছে যা থেকে বোঝা যায় যে ওজন হ্রাস করার লক্ষ্যে থাকা ব্যক্তিদের জলপাই তেলের কার্যকারিতা পেয়েছেন। তাই খাবারে যোগ করার পরিবর্তে জলপাই তেল সরাসরি পান করতে পারেন।

এসএফ//এমএইচ

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More