এই বৃষ্টিতে যেসব রোগে আক্রান্ত হতে পারেন

0 41

।। ডক্টর’স চেম্বার প্রতিবেদন।।

তীব্র গরমে এক পশলা বৃষ্টি শান্তির পরশ জোগায়। আজকেও ঢাকাসহ দেশের প্রায় সব জায়গায় বৃষ্টি হয়েছে। ভ্যাপসা গরমে এই বৃষ্টি আর্শিবাদ হলেও বৃষ্টি থেকে বিভিন্ন রোগের সূত্রপাত হতে পারে। বর্ষায় ডেঙ্গু, ম্যালেরিয়া, চিকুনগুনিয়া এবং জিকা ভাইরাসের মতো মশাবাহিত রোগের প্রাদুর্ভাব ঘটে। একইসঙ্গে বাতাসের আর্দ্রতা বেশি থাকায় হজম ক্ষমতাকে অনেকটা নষ্ট করে দেয়।

ডেঙ্গু ও ম্যালেরিয়া:

ডেঙ্গু ও ম্যালেরিয়া, মশা-বাহিত দুই রোগেই প্রচণ্ড জ্বর, পেশিতে ব্যথা, র‍্যাশ ইত্যাদির মতো উপসর্গ থাকে । ২০১৬ সালে সারা পৃথিবীতে যেখানে ৩০ লাখের বেশি মানুষ মানুষ ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হন, সেখানে ২০১৭ সালে এ সংখ্যা আরো অনেক বেশি। তাই বর্ষায় রোগের হাত থেকে বাঁচতে অবশ্যই সচেতন হতে হবে। সেক্ষেত্রে ঢাকা জায়গায় পানি রাখুন এবং সেই পানি যাতে ঘন ঘন বদলানো হয় সেদিকে খেয়াল রাখতে হবে। অবশ্যই বিশুদ্ধ পানি পান করবেন। মশার দূষক ব্যবহার করারও পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

ডায়রিয়া

এটি একটি অন্ত্রের সংক্রমণ। ডায়রিয়া হলে পাতলা পানির মতো মল, জ্বর, বমি বমি ভাব, পেটে বাধা, প্রস্রাবে রক্ত ইত্যাদি লক্ষণ দেখা যায়। ডায়রিয়া থেকে বাঁচতে বর্ষায় ফল ও শাকসব্জি ভালো করে ধুয়ে খেতে হবে। বেশি ফ্যাট ও মিষ্টি জাতীয় খাবার এড়িয়ে চলতে হবে।

জন্ডিস এবং টাইফয়েড

জন্ডিসে লিভারে বিলিরুবিনের মাত্রা বেড়ে যায়। অন্যদিকে, স্যালমোনেল্লা টাইফি ব্যাকটেরিয়ার কারণে টাইফয়েড হয়। জন্ডিসে লোহিত রক্ত কণিকা কমে যায়, যা একজন ব্যক্তিকে ম্যালেরিয়া, সিকেল সেল অ্যানিমিয়া এবং অন্যান্য অটোইমিউন রোগের জন্য আরও বেশি সংবেদনশীল করে তোলে। ভালো করে স্যানিটেশন এবং পরিষ্কার পানি খাওয়া খুবই গুরুত্বপূর্ণ। বমি বমি ভাব থাকলে অ্যান্টি-অ্যালার্জিক, অ্যান্টিমেডিকস ওষুধ খেতে পারেন। তবে পেইনকিলার খাওয়ার ক্ষেত্রে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

নিউমোনিয়া

বাতাসে ভেসে থাকা ব্যাকটেরিয়া এবং ভাইরাস নিশ্বাসের মাধ্যমে শরীরে প্রবেশ করে নিউমোনিয়া হয়। এক্ষেত্রে রোগীর শরীরে বুকে ব্যথা, দুর্বলতা, মানসিক সচেতনতায় পরিবর্তন, বমি বমি ভাব, বমি, নিশ্বাসে কষ্ট ইত্যাদি উপসর্গ দেখা যায়। ফুসফুসকে ঠিক রাখতে অবশ্যই নিয়মিত হাত ধুতে হবে এবং স্যানিটাইজার ব্যবহার করতে হবে। এছাড়া ফল, সবজি ইত্যাদি স্বাস্থ্যকর খাবার খেতে হবে। পাশাপাশি রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়াতে নিয়মিত এক্সারসাইজ করা জরুরি।

এসএফ

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More