সরকার নির্ধারিত দামে চাল সরবরাহ করতে চান না মিলাররা, বগুড়ায় জরুরি সভায় সিদ্ধান্ত

0 81

||বঙ্গকথন প্রতিবেদন||

সরকার নির্ধারিত দামে আমন চাল সরবরাহ করতে চান না মিল মালিকরা। বুধবার বগুড়ায় বাংলাদেশ অটো মেজর অ্যান্ড হাসকিং মিল মালিক সমিতির জরুরি সভা শেষে এই সিদ্ধান্তের কথা জানান মিলাররা। তারা বলছেন, ধানের সাথে সামঞ্জস্য রেখে কেজিপ্রতি চালের দাম না বাড়ালে তারা এবার সরকারের সঙ্গে চুক্তিতে যাবেন না। পাশাপাশি সরকারের সঙ্গে চাল সরবরাহের চুক্তি সম্পাদনের মেয়াদ ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত না বাড়ানোর দাবিও জানাচ্ছেন মিলাররা।

সরকারের আমন চাল সংগ্রহ প্রসঙ্গে মঙ্গলবার দুপুরে বগুড়ার একটি রেস্টুরেন্টে জরুরি সভা আহ্বান করে বাংলাদেশ অটো মেজর অ্যান্ড হাসকিং মিল মালিক সমিতি। সভায় বগুড়া, নওগাঁ, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, রাজশাহী, দিনাজপুর, রংপুর, নেত্রকোনাসহ দেশের বিভিন্ন জেলার মিলাররা অংশ নেন।

সভা শেষে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক কেএম লায়েক আলী গণমাধ্যমকে জানান, সরকার এবার আমন ধান কেজিপ্রতি ২৬ টাকা এবং চাল কেজিপ্রতি ৩৭ টাকা দরে সংগ্রহের ঘোষণা দিয়েছে। অথচ ধানের দামের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে চাল প্রস্তুতে মিলারদের কেজি প্রতি ৪৩ টাকার বেশি খরচ পড়ে যাবে। যে কারণে সরকার নির্ধারিত দামে এবার আমন চাল সরবরাহের জন্য চুক্তি করতে রাজি নন মিলাররা। সভায় সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে চালের দাম না বাড়ালে এবং আমন সরবরাহের চুক্তি সম্পাদনের সময়সীমা ১৫ ডিসেম্বর পর্যন্ত বাড়ানো না হলে এবার চুক্তি করবেন না মিলাররা। বিষয়টি নিয়ে সন্ধ্যায় নওগাঁয় খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদারের সঙ্গে বৈঠক রয়েছে বলেও জানান এই চালকল মালিক।

সংগঠনের সভাপতি আবদুর রশিদের সভাপতিত্বে সভায় বক্তব্য দেন চালকল মালিক সমিতি বগুড়ার সভাপতি এটিএম আমিনুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক আমিনুল হক দুদু, দিনাজপুরের সহ-সভাপতি প্রতাপ সাহা পানু, নেত্রকোনার সভাপতি এইচআর খান পাঠান ও সাধারণ সম্পাদক উজ্জল সাহা, নওগাঁর সভাপতি রফিকুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক ফরহাদ হোসেন, গাইবান্ধার সভাপতি নাজির হোসেন প্রধান, চাঁপাইনবাবগঞ্জের সভাপতি এরফান আলী এবং কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক আবদুল আজিজ।

খাদ্য মন্ত্রণালয় চলতি আমন মৌসুমে ৩৭ টাকা কেজি দরে ৬ লাখ টন চাল সংগ্রহের ঘোষণা দিয়েছে। মিলারদের জন্য সরকারের কাছে এই চাল সরবরাহের চুক্তি সম্পাদনের শেষ সময় নির্ধারণ করা হয়েছে ২৬ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার)। গেলো ১৫ নভেম্বর থেকে এই চাল সংগ্রহ শুরুর কথা থাকলেও এবার এখনো কোনো মিলার চাল সরবরাহের চুক্তি করেন নি মন্ত্রণালয়ের সঙ্গে।

এমএইচ//

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More