বিশ্ব মহামারীর অর্থবছরে ভারতকে ছাড়িয়ে বাংলাদেশের জিডিপি- আভাস আইএমএফের

0 35

।। বঙ্গকথন ডেস্ক ।।

২০২০ সালে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি ২ শতাংশ হতে পারে এমন ধারনা এবছর এপ্রিলে দিয়েছিলো এই সংস্থাটির ‘ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক আউটলুক ২০২০, দ্য গ্রেট লকডাউন’- প্রতিবেদনে । একই প্রতিবেদনে ২০২১ সালে ৯ শতাংশ প্রবৃদ্ধির কথাও বলেছিলো সংস্থাটি । মাস ছয়েক পর গেলো মঙ্গলবার প্রকাশিত প্রতিবেদনে ‘ওয়ার্ল্ড ইকোনমিক আউটলুক ’ এবছর বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি বাড়ার পূর্বাভাস দিলেও ২০২১ সালে তা কমে ৪ দশমিক ৪ শতাংশ হতে পারে বলে জানিয়েছে ।

আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল (আইএমএফ) এর সমীক্ষায় চলতি বছর পৃথিবীর বেশিরভাগ দেশের অর্থনীতি সংকোচিত হবে । বিশ্ব মহামারি করোনার প্রভাবেই মূলতঃ এ পরিস্থিতির সম্মুখীন হবে বিশ্ব আশঙ্কা আইএমএফ এর । গোটা বিশ্বে মাত্র ২২ টি দেশ ব্যাতিক্রম বলেও পূর্বাভাস দিয়েছে সংস্থাটি । আর শীর্ষ তিন দেশের মধ্যে থাকবে বাংলাদেশ এমন তথ্যও জানিয়েছে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিল । এর আগে বিশ্বব্যাংক ২০২০-২১ অর্থ বছরে বাংলাদেশের প্রবিদ্ধি ১ দশমিক ৬ শতাংশ হতে পারে বলে পূর্বাভাস দিয়েছিলো । এডিবি পূর্বাভাসে জানিয়েছিলো ৬ দশমিক ৮ শতাংশের কথা । ]

এবার আইএমএফের পূর্বাভঅস বলছে ২০২০ সালে বিশ্বের তৃতীয় সর্বোচ্চ ৩ দশমিক ৮ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হবে বাংলাদেশে । তবে, চলতি অর্থবছরে সরকারের লক্ষ্যমাত্রা ৮ দশমিক ২ শতাংশ । আন্তার্জাতিক সংস্থা আইএমএফের বিশ্ব অর্থনীতি সম্পর্কিত প্রতিবেদনে প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ি করোনা মহামারীর প্রভাবযুক্ত বিশ্ব বাজারের ক্যারিবীয় দেশ গায়ানায় এবছর সর্বোচ্চ ২৬ দশমিক ২ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হবে আর দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ৪ দশমিক প্রবৃদ্ধি হতে পারে দক্ষিণ সুদানে ।
আইএমএফ বলছে দক্ষিণ এশিয়ায় ভূটান ও বাংলাদেশ ছাড়া আর কোন দেশে ইতিবাচক প্রবৃদ্ধি হবেনা । শক্তিশালি দেশ ভারতের প্রবৃদ্ধি মাইনাস ১০ দশমিক হতে পারে বলেও উল্লেখ করা হয়েছে পঞ্জিকাবর্ষকেন্দ্রিক(জানুয়ারি-ডিসেম্বর) এই প্রতিবেদনটিতে ।

আইএমএফ এর তথ্য বলছে ডলারের হিসেবে বাংলাদেশের মাথাপিছু জিডিবি ১ হাজার ২ শ’ ৮৮ ডলার হয়ে ৪ শতাংশ বৃদ্ধি পাবে ২০২১ সালে। আর ২০২১ সালে মোট দেশজ উৎপাদনে মাথাপিছু (জিডিপি) ভারতকে অল্প ব্যাবধঅনে ছাড়িয়ে যাবে বাংলাদেশ বলেও মনে করছে তারা ।
বাংলাদেশ ছাড়াও গায়ানা,চীন,দক্ষিণ সুদান,রুয়ান্ডা,মিসর,লাওস,বতসোয়ানা , ভিয়েতনামসহ আরো কয়েকটি দেশের প্রবৃদ্ধি বাড়ার কথা জানালেও ভারত,যুক্তরাষ্ট্র,জার্মানি,যুক্তরাজ্য,জাপানের মতো বড় অর্থনীতির দেশগুলোতে চলতি বছর জিডিপি সংকুচিত হওয়ায় নেতিবাচক প্রভাব পরবে প্রবৃদ্ধিতে বলে উল্লেখ করা হয়েছে প্রতিবেদনটিতে ।
এরমধ্যে জিডিপি ১০ দশমিক ৫ শতাংশ কমে ভারতের মাথাপিছু জিডিপি ১ হাজার ৮ শ’ ৭৭ ডলার হবে বলে মনে করছে আইএমএফ । যা বিগত ৪ বছরের মধ্যে সবচেয়ে কম ।

প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী, দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে পাকিস্তান এবং নেপালের মাথাপিছু জিডিপির তুলনায় এগিয়ে থাকবে ভারত । সে হিসেবে ভূটান, শ্রীলংকা এবং মালদ্বীপের চেয়ে এগিয়ে থাকবে বাংলাদেশ । শ্রীলংকার পরে করোনা মহামারিতে ভারতীয় অর্থনীতি সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হবে বলে মনে করা হচ্ছে ।

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More