ফলোঅন ঠেকাতে একাই লড়ছেন আজহার

0 25

খেলার মাঠ প্রতিবেদন

এই মুহূর্তে পাকিস্তানের একমাত্র আশা-ভরসার নাম অধিনায়ক আজহার আলী। দিনের শুরুতে আবারও ব্যাটিং বিপর্যয়ে পড়া সফরকারীদের হয়ে এখনও লড়াই চালিয়ে যাচ্ছেন তিনি।

নয়তো রোববার (২৩ আগস্ট) সাউদাম্পটনে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন টেস্ট সিরিজের শেষ ম্যাচের তৃতীয় দিনের শুরুতে যেভাবে পাকিস্তান উইকেট হারাতে শুরু করেছিল, আজহার যদি মাটি কামড়ে পড়ে না থাকতেন তবে এতক্ষণে ফলোঅনে পড়ে তাদের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করতে হতো। টেস্টের নিয়ম অনুযায়ী প্রথম ইনিংসে দু’দলের ব্যবধান ২০০ রানের ওপরে হলে ফলোঅন হয়। সেক্ষেত্রে পাকিস্তান এখনও পিছিয়ে ৪০৬ রানে।

দলীয় তিন অঙ্কের ঘরে পা রাখার আগেই টপ-অর্ডারের ৫ উইকেট হারিয়ে ফেলেছিল পাকিস্তান।  সেখান থেকে উইকেটরক্ষক মোহাম্মদ রিজওয়ানকে নিয়ে নিজের টেস্ট ক্যারিয়ারের ১৭তম সেঞ্চুরির দিকে এগিয়ে যাচ্ছেন আজহার। তার আগে ৩২তম ফিফটিতে পাকিস্তানের পঞ্চম ব্যাটসম্যান হিসেবে টেস্টে ৬ হাজার রানের মাইলফলকে পা রেখেছেন ৩০ বছর বয়সী ডানহাতি ব্যাটসম্যান। দেশের হয়ে সাদা পোশাকের ক্রিকেটে তার চেয়ে বেশি রান আছে কেবল ইউনিস খান (১০০৯৯), জাভেদ মিঁয়াদাদ (৮৮৩২), ইনজামাম-উল-হক (৮৮২৯) ও মোহাম্মদ ইউসূফের (৭৫৩০)।  

এই প্রতিবেদন লেখা পযর্ন্ত পাকিস্তান প্রথম ইনিংসে ৫ উইকেট হারিয়ে ৬৫ ওভারে স্কোরবোর্ডে জমা করেছে ১৭৭ রান। ব্যাটিংয়ে আছেন আজহার (৮৮) এবং রিজওয়ান (৩৪)। ৩ উইকেটে ২৪ রান নিয়ে তৃতীয়দিন শুরু করেছিল মিসবাহ-উল-হকের দল।  

দিনের শুরুতেই জেমস অ্যান্ডারনের শিকারে পরিণত হন আসাদ শফিক (৫)। আগেরদিন সফরকারীদের উইকেট তিনটিও নিয়েছিলেন এই ইংলিশ পেসার। আর তিনটি উইকেট পেলেই টেস্ট ইতিহাস প্রথম পেসার এবং চতুর্থ বোলার হিসেবে ৬০০ উইকেটের মাইলফলকে পা রাখবেন অ্যান্ডারসন। ৩৮ বছর বয়সী ‘সুইং মাস্টার’র আগে এই মাইলফলকের চূড়া স্পর্শ করেন মুত্তিয়া মুরালিধরন (৮০০), শেন ওয়ার্ন (৭০৮) ও অনিল কুম্বলে (৬১৯)।  

শফিকের আউটের পর ফাওয়াদ আলমকে নিয়ে পাকিস্তানকে খাদের কিনার থেকে টেনে তোলার চেষ্টা করেন আজহার। কিন্তু সেই জুটিও বেশিক্ষণ টিকেনি। ১০ বছর পর দ্বিতীয় টেস্ট খেলতে নামা ফাওয়াদ (২১) আবারও ব্যর্থ ব্যাটিংয়ে। ডম বেসের বলে জস বাটলারের গ্লাভসবন্দী হয়ে সাজঘরে ফেরেন তিনি।  

এর আগে দ্বিতীয়দিন রানের পাহাড় গড়ে ইনিংস ঘোষণা করে ইংল্যান্ড। জ্যাক ক্রলির (২৬৭) প্রথম ডাবল সেঞ্চুরি এবং বাটলারের ১৫২ রানের সুবাদে ৮ উইকেটে ৫৮৩ রান করে স্বাগতিকরা।  

দু’দলের তিন ম্যাচ টেস্ট সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে আছে জো রুটের দল। বৃষ্টির কারণে ড্র হয় দ্বিতীয় টেস্ট।  

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More