কেমন হতে পারে আগামীতে কৃষি? [পর্ব-১]

[পর্ব-১]

0 391

||ক্ষেত-খামার প্রতিবেদন||

পর্ব-১ ।
২০৫০ এর মধ্যে, বিশ্বের জনসংখ্যা আরও ২ বিলিয়ন বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করা হচ্ছে এবং তাদের খাওয়ানো একটি বিশাল চ্যালেঞ্জ হবে। শিল্প উন্নয়ন ও নগরায়ণের কারণে আমরা প্রতিদিন প্রায় অনেক আবাদযোগ্য জমি হারাচ্ছি। বিজ্ঞানীরা বলেছেন যে গত ৪০ বছরে পৃথিবী তার আবাদ যোগ্য জমিগুলির এক তৃতীয়াংশ হারিয়েছে।

আমরা জানি না যে আগামী ৪০ বছরে আমরা আরও কতগুলো আবাদ যোগ্য জমি হারাতে যাচ্ছি। ক্রমবর্ধমান আবাদযোগ্য জমির হ্রাসের পাশাপাশি ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার বৃদ্ধির কারণে খাদ্যের চাহিদা বাড়ানো আমাদের সামনে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দাঁড়িয়েছে। অনেকে বিশ্বাস করেন যে উল্লম্ব কৃষিকাজ (Vertical Farming) এই চ্যালেঞ্জের জবাব হতে পারে। উল্লম্ব কৃষিকাজ (Vertical Farming) কি কৃষির ভবিষ্যৎ? চলুন খুঁজে দেখা যাক!

ভার্টিকাল ফার্মিং

ভার্টিকাল ফার্মিং কি?
উল্লম্ব কৃষি হ’ল এমন একটি ব্যবহারিক প্রযুক্তি, যার মাধ্যমে অতি অল্প স্থানে অধিক পরিমাণে খাদ্যফসল ও ভেষজ উদ্ভিদকে উৎপাদন করা যায় শুধুমাত্র উন্নত প্রযুক্তির সহায়তায়। এই কৃষিকে পোষাকি ভাষায় Indoor farming বা অন্দরমহল কৃষিও বলা হয়ে থাকে। কিছু কাঠের বা কংক্রিটের অথবা ধাতব তাককে পর পর উল্লম্বভাবে সাজিয়ে এই কৃষির ক্ষেত্র তৈরি করা যায়। আসলে এটি একটি নিয়ন্ত্রিত পরিবেশ কৃষি প্রযুক্তি, এখানে কৃষি সহায়ক সমস্ত রকমের পরিবেশ ও বিষয়গুলি (যেমন-আর্দ্রতা, তাপমাত্রা, গ্যাসসমূহ ইত্যাদি) তৈরি করা যায়। বলা ভালো, একটি কৃত্রিম আবহ সৃষ্টি করা হয়, যেমনটা গ্রীণহাউস-এর ক্ষেত্রে করা হয়ে থাকে। এখানে প্রাকৃতিক সূর্যালোকের বদলে কৃত্রিম লাল, নীল তরঙ্গের আলোকে সৃষ্টি করা যেতে পারে। কখনোও কখনোও এক্ষেত্রে ধাতব প্রতিফলক (Metal Reflector)-ও ব্যবহার করা যেতে পারে। এই কৃত্রিম আলোকে LED (Light Emitting Diods) দ্বারা পরিচালিত করা হয় এবং একটি বিশেষ সফটওয়্যার এর মাধ্যমে সব কটি উদ্ভিদ সঠিক পরিমাণ আলো, জল, ও পুষ্টিদ্রব্য পাচ্ছে কিনা তা নির্ণয় করা যায়। যদি সঠিক ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে এই কৃষিব্যবস্থাকে পরিচালিত করা হয়, সেক্ষেত্রে কোনোরকম আগাছানাশক বা কীটনাশকের প্রয়োজনীয়তা নেই, অর্থাৎ রাসায়নিকমুক্ত খাদ্য উৎপাদন সম্ভব।

উল্লম্ব কৃষির ইতিহাস
একটি প্রায় শতাধিক বৎসরের পুরানো তৈলচিত্রকে আমেরিকার Life Magazine দ্বারা প্রকাশিত করা হয়েছিলো ১৯০৯ খ্রিষ্টাব্দে। সেই চিত্রে দেখা গেছে একটি বহুতল অট্টালিকার প্রতিটি তলে কৃত্রিম উপায়ে খাদ্য উৎপাদন হচ্ছে। এই চিত্র থেকেই প্রথম এই ধরণের কৃষি ব্যবস্থার ধারণাটি আসে। পরবর্তীকালে আমেরিকার অপর একটি পত্রিকা Delirious Newyork-এ Rem Koolhaas তাঁর একটি রচনাতে প্রথম Vertical Farming-এর ধারণা দেন। Rem Koolhaas-এর এই নীতিকে অনুসরণ করে ১৯২২ সালে Immenbles villas ও ১৯৭২ সালে SITE’S Highrise of Homes নামক দুটি অট্টালিকা তৈরি করা হয়েছিলো যেগুলি ১৯০৯ সালের Life Magazine-এ প্রকাশিত শস্যশ্যামল অট্টালিকার মতই ছিলো। প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ১৯১৫ সালে স্যার গিলবার্ট এলিস বেইলে এই প্রযুক্তির নামকরণ করেন Vertical Farming.

কোথায় Vertical Farming ব্যবস্থাকে প্রচলিত করা যেতে পারে –
Vertical Farming-যেহেতু কৃত্রিম ও নিয়ন্ত্রিত প্রযুক্তিতে পরিচালিত কৃষি ব্যবস্থা, তাই শহর ও মফঃস্বলেই এর প্রচলন হওয়াটা স্বাভাবিক। প্রধানতঃ শহর ও মফঃস্বলগুলিকে খাদ্যের জন্য গ্রামীণ উৎপাদনের মুখাপেক্ষী হয়ে থাকতে হয়।

অন্যান্য Indoor Farming-এর সাথে Vertical Farming পদ্ধতির সুবিধাজনক তুলনা –
স্কটল্যান্ডের একটি কোম্পানি Vertical Farming-এর ব্যাপারে খুব যুক্তিপূর্ণ রিপোর্ট পেশ করেছে। তাদের মতে এই কৃষিপ্রযুক্তি সারাবিশ্বের যতরকম অন্দরমহল প্রযুক্তি রয়েছে তাদের মধ্যে সব থেকে উন্নত ও সাবলীল প্রযুক্তি, কারণ এই ধরণের কৃষিপ্রযুক্তিতে কৃত্রিম সুপরিকল্পিত বুদ্ধিমত্তার ব্যবহার হয়ে থাকে। এই সংস্থার মতে, এই প্রযুক্তিতে অন্যান্য কৃষিপ্রযুক্তির তুলনায় ৫০ শতাংশ বিদ্যুৎ খরচ ও ৮০ শতাংশ মজুরি খরচ কম লাগে, এবং সাধারণ গ্রীণহাউসের তুলনায় এই পদ্ধতিতে প্রায় ২০০ শতাংশ বেশি ফলন পাওয়া সম্ভব।

আগামী পর্বে [পর্ব-২] আলোচনা করা হবে Vertical Farming-এর প্রয়োজনীয়তা, এর সুবিধা ও এর সাহায্যে কি কি শাকসবজি উৎপাদন করা যায়।

 

 

 

 

উত্তর দিন

আপনার ইমেইল ঠিকানা প্রচার করা হবে না.

This website uses cookies to improve your experience. We'll assume you're ok with this, but you can opt-out if you wish. Accept Read More